শুক্রবার, ০১ জুলাই, ২০২২  |   ২৮ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   কচুয়ায় অগ্নিকাণ্ডে বসতঘর পুড়ে ছাই
  •   বাংলাদেশে ঈদুল আজহা ১০ জুলাই
  •   ডাকাত সন্দেহে কোস্টগার্ডের হামলায় নিখোঁজ ১ : আহত ২
  •   হাজীগঞ্জে নবজাতকের লাশ উদ্ধার
  •   অধ্যাপক    কামরুজ্জামান সাহেবের স্মরণ সভা  ও মিলাদ

প্রকাশ : ১৪ মে ২০২২, ০০:০০

ভাব প্রকাশ হোক মাতৃভাষায়
অনলাইন ডেস্ক

আমরা বাঙালি। স্বভাবতই আমাদের মাতৃভাষা বাংলা। এই বাংলার মাধ্যমেই মনের ভাব মুখে ফুটিয়ে তুলি। ছোটবেলা থেকেই কথা বলা থেকে শুরু করে যাবতীয় প্রকাশ মাধ্যম অধিকাংশ এ ভাষার মাধ্যমেই হয়। যখন আমাদের হাতেখড়ি এ বাংলা ভাষা তাহলে কেনো আমরা বাংলাকে পরিচয় দিতে এতো দ্বিধা করছি?

বর্তমান বা অতীত আমাদের মাঝে নিজ ভাষা, সংস্কৃতি, ঐতিহ্য এবং স্বকীয়তা ভুলে অন্যের ভাষা-ঐতিহ্যকে মাথায় তুলে নাচানাচি করা কিংবা একটু আলাদাভাবে না দেখালে যেনো আমাদের সয় না! এ রকম বিশিষ্টতা খুবই বেদনাদায়ক হলেও সত্যি। কিন্তু আত্মপরিচয়কে তুচ্ছ করে কেউ কখনো এগোতে পারেনি বরং মাতৃভাষাকে যারা করেছে আলিঙ্গন- তারাই আজ উচ্চশিখরে পৌঁছে আলোকিত করেছে বিশ্বাঙ্গন।

চিরাচরিত এ অনুকরণীয় বৈশিষ্ট্যকে ঝেড়ে ফেলে ¯্রােতের প্রতিকূলে গিয়ে আমাদের এক ভিন্ন গন্তব্যে পাড়ি জমাতে হবে। যেখানে তরী থাকবে আমাদের লক্ষ্য আর বৈঠা থাকবে আমাদের মাতৃভাষা তথা বাংলা ভাষা। শুধুমাত্র এক-দুদিনের জন্যে নয়, আমাদের সারাজীবন এ ধারাকে পুষ্ট করে রাখতে হবে।

যারা বলেন বাংলা ভাষা দিয়ে কিছুই হয় না, তারা হয় বাংলা জানেন না, নয় জগতের কোনো কিছু সম্পর্কে কোনো ধারণা নেই।

আমাদেরকে সবার সামনে আমাদের ভাষাকে প্রকাশ করতে হবে। প্রমাণ করতে হবে যে আমরাও কোনো দিক দিয়ে কম নয়। চিরাচরিত এই নিয়ম ভেঙে বাংলাকে মূল ভিত্তি ধরে ভালো কিছু করা সম্ভব। অন্যের ভাষা নিয়ে নয় বরং নিজ ভাষাকে নিয়ে আমাদের গর্ব করতে হবে, নিজ ভাষাকে সম্মান করতে হবে তাহলেই আমরা সফলকাম হবো।

সকল শিক্ষায়, সকল শাখায় বাংলাকে আকড়ে ধরতে হবে। সাহিত্য চর্চা থেকে শুরু করে বিজ্ঞান চর্চাও আমাদের বাংলাকে ধরে রাখতে হবে। বাংলাকে আকড়ে ধরে বড় বড় মনীষী সফলতার শীর্ষে পৌঁছে গেছেন।

যদি সাহিত্যের ক্ষেত্রে বলি তাহলে অনেক কবির নামই সামনে আসে। আমাদের বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। তিনি বাংলাকে আকড়ে ধরে নোবেলজয়ী হয়েছিলেন। কাজী নজরুল ইসলাম, জীবনানন্দ দাশসহ আরও অনেকে। আর যারা এই ভাষাকে সম্মান করেনি তারাই পড়েছে নানা বিপদে।

এবার যদি বিজ্ঞান চর্চার কথা বলি তাহলে সত্যেন্দ্রনাথ বসু, জগদীশ চন্দ্র বসু অন্যতম। তারা বাংলায় বিজ্ঞান চর্চা প্রসারে সমর্থকই ছিলেন না বরং সারাজীবন ধরে এ ধারাকে পুষ্ট করে গেছেন। এদের থেকে অনুপ্রেরণা নিয়ে আমাদের তাদের বাংলার প্রতি এমন গভীর শ্রদ্ধা চালিয়ে যেতে হবে।

যখন বড় বড় মনীষীরা বাংলাকে আঁকড়ে ধরে অমাবস্যার চাদর ছিঁড়ে করেছেন বিশ্বজয়, আজ আমরা এতো সুযোগ-সুবিধা পেয়েও গণ্ডি কাটিয়ে মোড়ক উন্মোচনে কেনো পাচ্ছি ভয়?

* পাঠক ফোরাম বিভাগে লেখা পাঠানোর ই-মেইল : pathok.ck@gmail.com

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়