চাঁদপুর, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪  |   ২৫ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   সেতু নির্মাণ হলে ঢাকা -চাঁদপুর সদরের দূরত্ব কমবে ৫২ কিলোমিটার
  •   মেঘনায় ট্রলারের ধাক্কায় জেলে নিখোঁজ
  •   নৌ-ধর্মঘট প্রত্যাহার, সকাল থেকে লঞ্চ চলাচল শুরু
  •   মতলব উত্তরে আবারও সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩
  •   কবরবাসী ইব্রাহিম এসএসসি‘তে পেয়েছে “এ“

প্রকাশ : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০০:০০

চাঁদপুর রেলওয়ে হকার্স মার্কেটে মোবাইলের দোকানে চুরি

চুরি হওয়া ৪২টি মোবাইল সেট হবিগঞ্জ থেকে উদ্ধার, আটক ১

চুরি হওয়া ৪২টি মোবাইল সেট হবিগঞ্জ থেকে উদ্ধার, আটক ১
স্টাফ রিপোর্টার ॥

চাঁদপুর শহরের রেলওয়ে হকার্স মার্কেটের মোবাইল ব্যবসায়ীর দোকান থেকে চুরি করে নিয়ে যাওয়া মোবাইল সেট হবিগঞ্জ জেলার প্রত্যন্ত এলাকা থেকে উদ্ধার করেছে চাঁদপুর সদর মডেল থানা পুলিশ।

জানা যায়, শহরের ব্যস্ত এলাকা শহীদ মুক্তিযোদ্ধা সড়কস্থ রেলওয়ে হকার্স মাকেটের মেসার্স মোবাইল মেলা নামক দোকান থেকে বিভিন্ন কোম্পানির ৮৮টি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল সেট চুরি করে চোর চক্র। চুরিকৃত মোবাইলের ৪২টি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল সেট উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে ৪টি চোরাই মোবাইল সেটসহ জগলু মিয়া (২৪) নামের একজনকে ৩ দিনের সফল অভিযান শেষে হবিগঞ্জ উপজেলার নবীগঞ্জ থানা থেকে আটক করে চাঁদপুর সদর মডেল থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

২৫ সেপ্টেম্বর রোববার দুপুরে চাঁদপুর সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আবদুর রশিদ বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মডেল থানার এসআই শাহরিন জানান, গত ১৫ আগস্ট রাতে দোকানে চুরির ঘটনায় দোকানের মালিক মোরশেদ আলম বাদী হয়ে চাঁদপুর সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। যার নং-৪৪। মামলায় ৮৮টি মোবাইল সেটের আনুমানিক মূল্য প্রায় ১৬ লক্ষ টাকা বলে উল্লেখ করা হয়। আটক জগলু মিয়া হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার পিরিজপুর গ্রামের মৃত মোখলেস মিয়ার ছেলে।

জানা যায়, ১৫ আগস্ট সোমবার রাতে দোকান বন্ধ হওয়ার পর থেকে সকালে দোকান খোলার আগ পর্যন্ত যে কোনো সময় চোর চক্র মোবাইল মেলা দোকানের চালের টিন খুলে ৮৮টি মোবাইল সেট নিয়ে পালিয়ে যায়। দোকানে চুরি পূর্বে দোকানে থাকা সিসি ক্যামেরার তার কেটে দেয় চোর চক্র।

এদিকে চুরির খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে মডেল থানা পুলিশ চুরির কাজে ব্যবহৃত কিছু মালামাল জব্দ করে। মামলা হওয়ার পর থেকে চাঁদপুর সদর মডেল থানার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই শাহরিন হোসেন এ মালামাল উদ্ধারে ব্যাপক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখেন। অবশেষে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার করে হবিগঞ্জ উপজেলার নবীগঞ্জ থানার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে প্রথমে জগলুকে ৪টি মোবাইল সেটসহ আটক করেন। পরে আটক জগলুর তথ্য মতে নবীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় আরো ৩৮টি মোবাইল সেট উদ্ধার করেন। স্থানীয় প্রশাসন ও পুলিশের সহায়তায় এ উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে সহায়তা করেন চাঁদপুর সদর মডেল থানার এএসআই তসলিম হোসেন।

আটক জগলু মিয়া বলেন, আমি বেসরকারি একটি গ্যাস কোম্পানিতে চাকুরি করি। আমার এক বন্ধু মোবাইল সেটগুলো রাখতে দিয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই শাহরিন হোসেন বলেন, তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় হবিগঞ্জের নবীগঞ্জের বিভিন্ন স্থান থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় ৩৮টি ও আটক জগলু মিয়ার কাছ থেকে ৪টি মোবাইল ফোন সেট উদ্ধার করা হয়েছে। চোর চক্রের মূল হোতাকে আমরা শনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছি। উদ্ধার হওয়া মোবাইল সেটের মূল্য প্রায় ১০ লক্ষাধিক টাকা। মুলত ঘটনার সাথে জড়িত মূল আসামীকে আটক করতে পারিনি। আশা করছি শীঘ্রই মূল আসামীকে আটক করা সম্ভব হবে।

চাঁদপুর সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আবদুর রশিদ বলেন, ১৫ আগস্ট রাতে দোকানের টিন খুলে ৮৮টি মোবাইল সেট নিয়ে যায় চোর চক্র। পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ স্যারের দিকনির্দেশনায় হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ থানা থেকে ৪২টি মোবাইল সেট উদ্ধার এবং ১ জনকে আটক করা হয়েছে। বাকি মোবাইল সেট ও মূল আসামীকে আটক করতে অভিযান অব্যাহত থাকবে। আটক আসামীকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়