চাঁদপুর, শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩, ১৩ মাঘ ১৪২৯, ৪ রজব ১৪৪৪  |   ২৮ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   বাবুরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের আয়োজনে সরস্বতী পুজা উদযাপন
  •   চাঁদপুর শহরে বেড়েই চলছে কিশোর গ্যাংয়ের উৎপাত
  •   চাঁদপুর জেলা আইনজীবী সমিতিতে বিএনপি প্যানেলের নিরঙ্কুশ বিজয়
  •   চাঁদপুর সেন্ট্রাল ইনার হুইল ক্লাবের গৌরবের যুগপূর্তি অনুষ্ঠান
  •   হয়রানির আরেক নাম প্রি-পেইড বিদ্যুৎ মিটার

প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর ২০২২, ১৪:১০

মতলব উত্তরে আগুনে পুড়লো তিনটি বসতঘর, আতঙ্কে ১ বৃদ্ধার মৃত্যু

বাবুল মুফতী
মতলব উত্তরে আগুনে পুড়লো তিনটি বসতঘর,  আতঙ্কে ১ বৃদ্ধার মৃত্যু

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলায় আগুনে পুড়লো ৩টি বসতঘর। এতে প্রায় ৭ লাক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হয়েছে। আগু লাগার খবরে আতংকে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। জানা যায়, রোববার ১৩ নভেম্বর সন্ধ্যায় ৭টার সময় মতলব উত্তর উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের চৌমুহনী গ্রামের সরকার বাড়িতে বিধানের ঘরে বিদ্যুৎের শর্টসার্কিট থেকে আগুন লেগে মুহূর্তের মধ্যে আগুনের লেলিহান শিখা পুরো ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। পরে পাশের ঘর তার ভাই সুমন সরকার ও বোন আলো রানীর ঘরে আগু ছড়িয়ে পড়ে। সুমন সরকারের ছেলে শ্রীকান্ত আগুন দেখে চিৎকার দিলে আশেপাশের লোকজন দৌড়ে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে ফায়ার সার্ভিস আসার আগেই স্থানীয়রা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এদিকে আগুনের লেলিহান শিখা দেখে ভয়ে কিছু লোক দৌড়ে আত্ম রক্ষার চেষ্টা করে। পাশের বাড়ির মৃত কানাই শীলের স্ত্রী হরিদাসী (৯৫) ভয়ে দৌড়ে পালাবার সময় রাস্তা থেকে পরে পানিতে পরে যায়। সেখানেই তার মৃত্যু হয়। বিধানের স্ত্রী কানন বালা বলেন, আমরা পাশের ঘরে বসে টিভি দেখছিলাম। এমন সময় সুমনের ছেলে শ্রীকান্ত আগুন বলে চিৎকার দেয়। বেরিয়ে দেখি আগুন দাও দাও করে মুহূর্তের মধ্যে ৩ টি ঘরে লেগে যায়। আগুনের তাপে ঘরে প্রবেশ করা সম্ভব হয়নি। আগুন পুড়ে আমার কমপক্ষে ৩ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

সুমন সরকার বলেন, আমার ঘরে থাকা ফ্রিজ আলমারি ও আসবাবপত্রসহ ২ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। আলো রানী বলেন, স্বামীর অথ্যাচার সহ্য করতে না পেরে ২ সন্তান নিয়ে বাবার বাড়ি আশ্রয় নিয়েছি। আগুন আমার সেই আশ্রয়টফু কেরে নিয়েছে। আমি এখন নি:শ্ব। আমার ঘরোহ ২ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

এ খবর শুনে স্থানীয় ইউপি সদস্য হাসমত আলী প্রধান ও থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়