চাঁদপুর, রবিবার, ২২ মে ২০২২, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩  |   ২৮ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   চাঁদপুর ডায়াবেটিক সমিতির ৭ম বার্ষিক সাধারণ সভা
  •   ইভিএম’র ভুল ধরতে পারলে ১০ মিলিয়ন ডলার পুরস্কার
  •   মতলব দক্ষিণে মাদক বিক্রিতে বাধা দেয়ায় ছেলেকে না পেয়ে বাবাকে মারধর
  •   ভুয়া বিচারপতি বিপ্লব এখন কারাগারে
  •   মতলব দক্ষিণে কীটনাশক খেয়ে বৃদ্ধের আত্মহত্যা

প্রকাশ : ০৪ জানুয়ারি ২০২২, ১৮:০৭

মতলবে নবম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা

মতলবে নবম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা
রেদওয়ান আহমেদ জাকির

মতলব দক্ষিণ উপজেলার নারায়নপুর ইউনিয়নের দারিন্দা রসুলপুর গ্রামে নবম শ্রেণির এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় সোমবার বিকেলে ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে আহম্মদ হোসেন (১৮) ও আব্দুর রহমান (১৯) নামের দুই যুবককে আসামি করে থানায় মামলা করেছেন। ধর্ষণের শিকার মেয়েটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য আজ ৪ জানুয়ারি মঙ্গলবার সকালে চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মেয়েটির মা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আহম্মদ হোসেন ও তাঁর সহযোগী আব্দুর রহমানের বাড়ি উপজেলার দারিন্দা রসুলপুর গ্রামে। আহম্মদ ওই গ্রামের আবু সাঈদ সরকারের এবং আব্দুর রহমান ওই গ্রামের শাহাবউদ্দিন সরকারের ছেলে। কিশোরী রসুলপুর আননিসা দাখিল মাদ্রাসার নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী। সে এবং অভিযুক্তরা পাশাপাশি বাড়ির বাসিন্দা। উপজেলার বাড়ৈগাঁও গ্রামের শাকিল মিয়া নামে এক তরুণের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে ওই কিশোরীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল।

গত বৃহস্পতিবার রাত ১১টায় বাড়ির পাশে ওই তরুণের সঙ্গে গোপনে দেখা করতে যান কিশোরীটি। আশপাশে আগে থেকেই ওঁৎ পেতে ছিল কিশোরীর পাশের বাড়ির আহম্মদ হোসেন ও তাঁর সহযোগী আব্দুর রহমান। তাঁরা ওই দুই প্রেমিকযুগলের কাছাকাছি গেলে ভয়ে দৌড়ে পালিয়ে যায় প্রেমিকটি (শাকিল)। পরে রুমাল দিয়ে মুখ চেপে কিশোরীকে জোরপূর্বক আহম্মদ তাঁর বাড়িতে নিয়ে যান। বাড়িটির একটি নির্জন ঘরে আব্দুর রহমানের সহযোগিতায় ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করেন আহম্মদ।

ওই কিশোরী ঘটনাটি তার বাবা-মাকে জানালে তারা বিষয়টি মীমাংসার জন্য স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিকে অনুরোধ করেন। কিশোরীর পরিবারটি গরীব হওয়ায় ঘটনাটি মিমাংসার আশ্বাস দিয়ে গণ্যমান্য ব্যক্তিরা এ নিয়ে কালক্ষেপণ করেন। পরে বাধ্য হয়ে ওই কিশোরীর মা আহম্মদ হোসেন ও আব্দুর রহমানকে আসামি করে থানায় মামলা করেন।

মতলব দক্ষিণ থানার ওসি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মিয়া বলেন, মামলার দুই আসামিকে এখনো গ্রেপ্তরা করা যায়নি। তবে তাঁদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়