চাঁদপুর, শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩  |   ২৯ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   চাঁদপুরের ২১তম জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান
  •   প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ৫ পরীক্ষার্থী হতাহত
  •   হাজীগঞ্জের শিশু আরাফ হত্যায় তিন আসামীর মৃত্যুদণ্ড
  •   কল্যাণপুর ইউপির জেলে চাল আত্মসাৎ, দুই গুদাম সিলগালা
  •   মা আর স্ত্রীকে বুঝিয়ে দেয়া হলো দুই ভাইয়ের লাশ

প্রকাশ : ০৫ জানুয়ারি ২০২২, ০০:৫০

ফরিদগঞ্জে নির্বাচন পর্যবেক্ষক কার্ড বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ

ফরিদগঞ্জ ব্যুরো
ফরিদগঞ্জে নির্বাচন পর্যবেক্ষক কার্ড বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ

ফরিদগঞ্জে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন পর্যবেক্ষণ এর জন্য জার্ণালিস্ট লেখা কার্ড দেয়া হয়েছে ইউটিউব চ্যানেল ব্যবহারকারীকে। একটি পত্রিকার নাম ব্যবহার করে কয়েকজনকে কার্ড দেয়া হয়েছে। সাংবাদিকতায় জড়িত নন, ভূইফোঁড় পত্রিকা বা টেলিভিশনের নাম ব্যবহারকারীকে কার্ড দেয়া ও কার্ড শেষ হয়ে যাওয়ার পর ফটোকপি বিলি করা হয়েছে। এমন ব্যক্তি ভোট কেন্দ্রে গিয়ে কী করবে- এ নিয়ে ব্যাপক প্রশ্ন উঠেছে। মোটরসাইকেল ব্যবহার করা যাবে না জানিয়ে দিয়েও কাউকে মোটরসাইকেলের কার্ড দেয়া হয়েছে। তাছাড়া, বিলিকৃত এমন কার্ডে ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের নাম নেই। কার্ড বিতরণের এ কাজটি করেছে ফরিদগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন অফিস। ফলে তাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য বিষয়ে ভোটার, প্রার্থী ও সংশ্লিষ্ট মহলে প্রশ্ন উঠেছে।

অভিযোগে প্রকাশ, বরাবর সরকারের নানা কর্মসূচি প্রচার ও প্রকাশসহ নির্বাচন পর্যবেক্ষণে বিশেষ ও গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে আসছেন বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মীরা। সারা বছর স্বেচ্ছায় এ দায়িত্ব পালন করেন উপজেলায় কর্মরত এমন সংবাদকর্মীদের সংশ্লিষ্ট নির্বাচন অফিসের কর্তাগণ চেনেন ও জানেন। নির্বাচনের দায়িত্ব পালন করার প্রয়োজনে তাদের পর্যবেক্ষণ কার্ড প্রদান করা হয়। কিন্তু, প্রায় প্রতি নির্বাচনেই দেখা যায় তেমন সংবাদকর্মীরা কার্ড না পেয়ে দায়িত্ব পালন করতে পারেন না। অথচ, সাংবাদিকতার সঙ্গে জড়িত নন- এমন যুবক ও ব্যক্তিকে কার্ড প্রদান করা হয়। এবারের ইউপি নির্বাচনের পর্যবেক্ষণ কার্ড নিয়েও ফরিদগঞ্জে এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটেছে।

নিয়মিত সাংবাদিকতা করেন এমন সংবাদকর্মীগণ অভিযোগ করে বলেছেন, কার্ডের জন্য ফরিদগঞ্জ উপেজলা নির্বাচন অফিসে আবেদন করেও কার্ড পাওয়া যায়নি। অথচ সাংবাদিকতা করেন না, গণমাধ্যমে কোনোদিন একটি শব্দও লিখেননি- এমন যুবককে কার্ড দেয়া হয়েছে। বিগত বিভিন্ন নির্বাচনে কার্ডধারী ওইসব ব্যক্তি নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারসহ অবৈধ কর্মকান্ড করেছে বলে সেসব নির্বাচনের প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিগণ বিভিন্ন সময়ে অভিযোগ করেছেন। সেসব অভিযোগ আমলে নেয়াসহ নির্বাচন কেন্দ্রে তাদের ভূমিকা ও সংবাদ মাধ্যমে কর্মের প্রতিফলন কখনই খতিয়ে দেখা হয়নি। এর ফলে, ওইসব ব্যক্তিরা ভোট কেন্দ্রে প্রভাব বিস্তারের মোক্ষম অস্ত্র হিসেবে সাংবাদিক এর পর্যবেক্ষণ কার্ড বিশেষভাবে ব্যবহার করে আসছেন। এবারের নির্বাচনেও তেমন ঘটনা ঘটার আশংকা বিরাজ করছে এবং স্বভাবতই প্রশ্ন উঠেছে- কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব কি, কিসের ভিত্তিতে ও কার ইঙ্গিতে এভাবে একটি গুরুত্বপূর্ণ কার্ড যারতার হাতে তুলে দেয়া হচ্ছে।

মঙ্গলবার বিকালে নির্বাচনে অফিসে উপস্থিত হয়ে জানা গেছে ঢালাওভাবে সাংবাদিক পর্যবেক্ষণ কার্ড বিতরণ করা হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি সংবাদকর্মীকে জানিয়েছেন, ইউটিউব চ্যানেল- সাংবাদিক পরিচয়ে এক যুবক কার্ড নিয়েছে। পত্রিকা খুঁজে পাওয়া যায় না- এমন একটি পত্রিকার নাম ব্যবহারকারী কয়েকজনকে কার্ড দেয়া হয়েছে। একইভাবে, ভুইফোঁড় টেলিভিশন এর নামেও কার্ড বিতরণ করা হয়েছে। নিয়মিত সাংবাদিকতা করেন এমন সংবাদকর্মী প্রশ্ন তুলে বলেছেন, যেনো টেলিভিশন আলু-পটল।

মঙ্গলবার বিকালে কার্ড বিতরণ করছিলেন নির্বাচন অফিসের সহকারী শ্রী গৌতম। অফিসে উপস্থিত থেকে দেখা গেছে তিনি কাউকে কার্ড দিচ্ছেন, কাউকে বলছেন নেই। এমনও দেখা গেছে, নিয়মিত সংবাদকর্মীকে কার্ড দেননি। অথচ, কখনও সাংবাদিকতা করেন না- এমন যুবকদের কার্ড দিচ্ছেন। কার্ড শেষ হয়ে যাওয়ার পর এক পর্যায়ে তিনি ফটোকপি বিতরণ করেন। এ বিষয়ে তাকে প্রশ্ন করা হলে কোনো উত্তর দিতে রাজি নন বলে জানান তিনি।

এদিকে, ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাব এর সভাপতি মোহাম্মদ কামরুজ্জামান ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাব এর পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সংখ্যক পর্যবেক্ষণ কার্ড চেয়ে পাওয়া যায়নি। অবাক হলেও এমন ঘটনা ঘটেছে যে, পর্যবেক্ষণ কার্ড এর ফটোকপি বিতরণ করা হয়েছে। আমি জানতে চাইলে নির্বাচন অফিসার মিজানুর রহমান বলেছেন, পর্যবেক্ষণ কার্ড এর ফটোকপি বিতরণের সুযোগ নেই। তিনি আরও বলেছেন, মোটর সাইকেল ব্যবহারকারী সাংবাদিককে কার্ড দেয়া হয়নি। কেউ যদি ব্যবহার করে তা গ্রহণযোগ্য হবে না। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেছেন, মাইক্রো গাড়ির জন্য কার্ড দেয়া হয়েছে। কার্ডে নাম, পত্রিকা বা ইলেক্ট্রনিকস মিডিয়া- কোনো নামই উল্লেখ নেই কেনো। এ বিষয়ে তিনি কোনো জবাব দেননি।

এ ব্যপারে ফরিদগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিউলী হরি বলেন, এমন অভিযোগ দুঃখজনক। নির্বাচনের পরে আপনাদের সঙ্গে বসবো ও বিষয়টি খতিয়ে দেখবো।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়