চাঁদপুর, শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩  |   ২৯ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   চাঁদপুরের ২১তম জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান
  •   প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ৫ পরীক্ষার্থী হতাহত
  •   হাজীগঞ্জের শিশু আরাফ হত্যায় তিন আসামীর মৃত্যুদণ্ড
  •   কল্যাণপুর ইউপির জেলে চাল আত্মসাৎ, দুই গুদাম সিলগালা
  •   মা আর স্ত্রীকে বুঝিয়ে দেয়া হলো দুই ভাইয়ের লাশ

প্রকাশ : ১৯ আগস্ট ২০২১, ১১:০২

স্বাস্থ্যবিধি মেনেই খুললো পর্যটন কেন্দ্র

অনলাইন ডেস্ক
স্বাস্থ্যবিধি মেনেই খুললো পর্যটন কেন্দ্র

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ায় গত ১ এপ্রিল থেকে বন্ধ করে দেয়া হয় দেশের পর্যটন কেন্দ্রগুলো। দীর্ঘ সাড়ে চার মাস পর আজ থেকে ফের এগুলো চালু হচ্ছে। ঘুরতে আসা পর্যটকদের বরণ করে নিতে প্রস্তুত হোটেল মোটেলসহ পর্যটন ব্যবসায়ীরা।

পর্যটনকেন্দ্রগুলো খুলে দিলেও এর সঙ্গে শর্ত জুড়ে দিয়েছে সরকার। রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার ও বিনোদনকেন্দ্র আসন সংখ্যার শতকরা ৫০ ভাগ ব্যবহার করে চালু করতে পারবে। সব ক্ষেত্রে মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করতে হবে। মানতে হবে স্বাস্থ্য অধিদফতর প্রণীত স্বাস্থ্যবিধি। যদি কোনো প্রতিষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে অবহেলা দেখা যায় তাহলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এই দায়িত্ব বহন করবে এবং তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

জীবিকা ও অর্থনীতির কথা চিন্তা করে পর্যটন কেন্দ্র খুলে দেওয়া হয়েছে। এতে করোনার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত পর্যটন শিল্প ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ পেয়েছে। হোটেল মোটেল ও রিসোর্টগুলো সরকারের নির্দেশনা সঠিকভাবে পরিপালন করছে কিনা স্থানীয় প্রশাসন সেগুলো শক্তভাবে মনিটরিং করা হবে।

পর্যটন কেন্দ্র খুলে দেওয়ার বিষয়ের মঙ্গলবার (১৭ আগস্ট) বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেছেন, এমন কোনো কাজ করা যাবে না যাতে সংক্রমণ বৃদ্ধির কারণে আবার এই খাত বন্ধ হয়ে যায়। তিনি বলেন, করোনা সংক্রমণ রোধে প্রতিটি পর্যটনকেন্দ্র, হোটেল-মোটেল ও রিসোর্টকে সরকারি প্রজ্ঞাপনে নির্ধারিত নিয়ম মেনে চলতে হবে। পর্যটন কেন্দ্রে সবাইকে অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে, এর কোনো ব্যত্যয় হবে না।

সবার উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেন, দেশের পর্যটনকেন্দ্রে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে পর্যটকদের উদ্বুদ্ধ করতে ব্যাপক প্রচারণার মাধ্যমে জনসচেতনতা তৈরি করতে হবে। সবার মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। পর্যটকদের সচেতন করতে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে জনপ্রতিনিধি, স্বেচ্ছাসেবক, স্কাউটসহ অন্যান্যদের সম্পৃক্ত করে কার্যক্রম পরিচালনা করবে। হোটেল, মোটেল ও রিসোর্ট সঠিকভাবে নিয়মিত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন এবং জীবাণুমুক্ত রাখতে হবে।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়