চাঁদপুর, রবিবার, ৩ জুলাই ২০২২, ১৯ আষাঢ় ১৪২৯, ৩ জিলহজ ১৪৪৩  |   ২৯ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   চাঁদপুরের সাবেক এসপি কৃষ্ণ পদ রায় সিএমপির কমিশনার
  •   চাঁদপুরের রোটার‌্যাক্ট ক্লাবগুলোর জিরো আওয়ার সেলিব্রেশন প্রোগ্রাম
  •   চাঁদপুর পৌরসভার অর্থায়নে একটা ব্লাড ব্যাংক করবো
  •   বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে শিক্ষাব্যবস্থা ঢেলে সাজানো হচ্ছে
  •   রোটারিয়ানগণ সেবামূলক যে মহৎ কার্যক্রম করছেন তা সত্যিই অনুকরণীয়

প্রকাশ : ২৫ মে ২০২২, ০০:০০

সমন্বিত উন্নয়ন প্রসঙ্গে
অনলাইন ডেস্ক

নিঃসন্দেহে আমাদের দেশে প্রচুর উন্নয়ন হয়েছে এবং হচ্ছে। কিন্তু সমউন্নয়ন কি হচ্ছে?-নির্দ্বিধায় বলা যায়, সমউন্নয়ন হচ্ছে না। কোনো কোনো মন্ত্রীর এলাকায় উন্নয়ন উপচে পড়ছে, আবার কোনো কোনো এমপির এলাকায় চলছে উন্নয়ন-বঞ্চনা। কোনো এমপি সরকার দলীয় হলে তো কিছু উন্নয়ন প্রকল্প ভাগে পান, আর তিনি তদবির করতে পারলে অনেক উন্নয়ন প্রকল্প তাঁর আয়ত্তে চলে আসে। কোনো এমপি বিরোধী দলীয় হলে তাঁর এলাকার জন্যে যে স্বল্প সংখ্যক উন্নয়ন প্রকল্প সম্পন্ন হয়, সমালোচকরা সেটা করুণার সমতুল্য মনে করে। আমাদের দেশের এমন বাস্তবতায় আজ থেকে বেশ ক’বছর আগে এক সমাজহিতৈষী ব্যক্তি সমউন্নয়ন পরিষদ নামে একটি বেসরকারি সংগঠন প্রতিষ্ঠা করে সারাদেশে জনমত সৃষ্টির জন্যে জেলাওয়ারী সফর এবং স্থানীয় সুধীবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করেন। তিনি তাঁর মতবিনিময় সভাগুলোতে নিজ কণ্ঠে গাইতেন একটি রবীন্দ্র সংগীত, যার প্রথম কলি হচ্ছে ‘যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে, তবে একলা চলো রে...’। ভদ্রলোক একটি ব্রিফকেস হাতে একলা চলে চলে সারাদেশে সমউন্নয়নের যৌক্তিকতা তুলে ধরেছেন ঠিকই, কিন্তু কাক্সিক্ষত আন্দোলন বা আলোড়ন সৃষ্টি করতে পেরেছেন বলে মনে হয় না।

বর্তমানে সরকার নিজ থেকেই সমউন্নয়ন বা সমন্বিত উন্নয়নের কথা যে ভাবছে সেটা চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি) আসনের এমপি মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তমের একটি বক্তব্য থেকে জানা গেছে। তিনি গত ২৩ মে সোমবার হাজীগঞ্জ পৌরসভাধীন রান্ধুনীমুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবনির্মিত চারতলা একাডেমিক ভবনের উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত বিরাট অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, হাজীগঞ্জ ও শাহরাস্তিতে সমন্বিত উন্নয়ন করা হবে। দেশের তিনশ’টি সংসদীয় আসনের মধ্যে পাঁচটি আসনকে সমন্বিত উন্নয়ন পরিকল্পনার মধ্যে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে সৌভাগ্যক্রমে আমাদের চাঁদপুর-৫ সংসদীয় আসন তথা হাজীগঞ্জ ও শাহরাস্তি উপজেলা রয়েছে। তাই সমন্বিত উন্নয়নের লক্ষ্যে হাজীগঞ্জ ও শাহরাস্তি উপজেলার জন্যে ড্রোনের মাধ্যমে একটি উন্নয়ন ম্যাপ তৈরি করা হবে। এ ম্যাপের মাধ্যমে সকল উন্নয়ন সমন্বিত হবে। কোনো রাস্তাঘাট কাঁচা থাকবে না। কোন্ স্কুলে ভবন নেই, কোন্ নদী বা খালে ব্রিজ বা কালভার্ট লাগবে সেই ম্যাপ দ্বারা বোঝা যাবে। এতে সমন্বিত বা সুষম উন্নয়ন সমন্বয় হবে। যার সুফল হাজীগঞ্জ ও শাহরাস্তিবাসী ভোগ করবে।

আমরা দেশের তিনশ’টি সংসদীয় আসনের মধ্যে মাত্র যে পাঁচটি সংসদীয় আসনকে সমন্বিত উন্নয়ন পরিকল্পনার মধ্যে রাখা হয়েছে, তাতে চাঁদপুর-৫ আসনের অন্তর্ভুক্তিতে এই আসনের এমপি মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তমকে এবং তাঁর আসনের আওতাধীন হাজীগঞ্জ ও শাহরাস্তি উপজেলাবাসীকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। বয়সের দিক দিয়ে আশি ছুঁই ছুঁই (জন্ম ১৩ সেপ্টেম্বর ১৯৪৩, বর্তমান বয়স ৭৮ বছর ৮ মাস ১১ দিন) হলেও একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে নিজ এলাকার উন্নয়নের জন্যে তাঁর যে প্রাণান্তকর প্রয়াস লক্ষ্য করা যায়, তাতে অনেকেই বিস্মিত হয়ে যান। আমরা সুস্থতার সাথে তাঁর দীর্ঘ জীবন এবং সকল উন্নয়ন ভাবনা ও এ সংক্রান্ত তাঁর আন্তরিক প্রয়াসের সাফল্য কামনা করি।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়