চাঁদপুর, শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩  |   ২৯ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   চাঁদপুরের ২১তম জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান
  •   প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ৫ পরীক্ষার্থী হতাহত
  •   হাজীগঞ্জের শিশু আরাফ হত্যায় তিন আসামীর মৃত্যুদণ্ড
  •   কল্যাণপুর ইউপির জেলে চাল আত্মসাৎ, দুই গুদাম সিলগালা
  •   মা আর স্ত্রীকে বুঝিয়ে দেয়া হলো দুই ভাইয়ের লাশ

প্রকাশ : ০২ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৪২

মতলব দক্ষিণে এমপি রুহুল ও সাবেক মন্ত্রী মায়ার কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ

গাড়ি ভাংচুর আহত ১০

চাঁদপুর কণ্ঠ রিপোর্ট
মতলব দক্ষিণে এমপি রুহুল ও সাবেক মন্ত্রী মায়ার কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ

চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি মোঃ নূরুল আমিন রুহুল ও সাবেক ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। এ সময় প্রায় ২০টি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। গতকাল শনিবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে মতলব দক্ষিণ উপজেলায় মতলব সেতুর টোল প্লাজা এলাকায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ, প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা যায়, বেলা ১১টায় চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে চাঁদপুর স্টেডিয়ামে দলটির তৃণমূল প্রতিনিধি সভার আয়োজন করা হয়। সভায় যোগদানের জন্যে সকাল ৮টা থেকে মতলব দক্ষিণ উপজেলার মতলব সেতুর টোল প্লাজা এলাকায় নূরুল আমিন রুহুল এমপি ও সাবেক মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার অনুগত নেতা-কর্মী ও সমর্থকেরা জড়ো হন। শুক্রবার বিকেলে ওই এলাকায় একটি মঞ্চও তৈরি করেন সাংসদ রুহুলের পক্ষের লোকজন।

সকাল পৌনে ১০টার দিকে সেখানে মায়া চৌধুরী ও সাংসদ রুহুলের লোকেরা মিছিল বের করেন। একপর্যায়ে উভয় পক্ষের নেতা-কর্মী ও সমর্থকেরা লাঠিসোটা এবং দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এ সময় গোটা এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষ চলাকালে অন্তত ২০টি ব্যক্তিগত গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। ভাঙ্গা হয় মঞ্চ। এ সময় আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১০ জন।

আহত ব্যক্তিদের মধ্যে মতলব উত্তর উপজেলার মোহনপুর এলাকার শরিফ মিয়া, আজমত উল্লাহ ও মতলব দক্ষিণ উপজেলার বাইশপুর এলাকার মোঃ নাঈমকে মতলব দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। বাকিরা বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

খবর পেয়ে চাঁদপুরের সহকারী পুলিশ সুপার (মতলব সার্কেল) ইয়াসির আরাফাত ও মতলব দক্ষিণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মিয়া পুলিশ সদস্যদের নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। উভয় পক্ষের কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

সাংসদ মোঃ নূরুল আমিন রুহুলের ব্যক্তিগত সহকারী (পিএ) লিয়াকত আলী ও মতলব উত্তর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক মহসিন মিয়া মানিক অভিযোগ করেন, এলাকায় ত্রাস ছড়ানো এবং রাজনৈতিক আধিপত্য বিস্তারের লক্ষ্যেই মায়া চৌধুরীর লোকেরা তাদের ওপর পরিকল্পিতভাবে এই হামলা চালিয়েছে। এতে তাদের ১০ জন কর্মী আহত হয়েছেন। তাদের লোকজনের ২০টি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে কথা বলার জন্যে সাবেক মন্ত্রী ও চাঁদপুর-২ আসনের সাবেক সাংসদ মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি। তবে তার অনুগত হিসেবে পরিচিত ছাত্রলীগ নেতা সেলিম রেজাসহ বেশ কয়েকজন কর্মী দাবি করেন, তাদের ওপর সাংসদ রুহুলের লোকেরা এ হামলা চালিয়েছে। ঘটনাটির জন্য তারা দায়ী নন।

মতলব দক্ষিণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মিয়া বলেন, ঘটনাস্থলে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি শান্ত ও সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে আছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো পক্ষই মামলা করেনি।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়