চাঁদপুর, রবিবার, ২৬ জুন ২০২২, ১২ আষাঢ় ১৪২৯, ২৫ জিলকদ ১৪৪৩  |   ৩০ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   বৃহৎ র‌্যালি আল-আমিন একাডেমি ও চেয়ারম্যান সেলিম খানের
  •   পদ্মা সেতুর থিম সং-এর গীতিকার কবির বকুলকে শিক্ষামন্ত্রীর অভিনন্দন
  •   হাইমচরে পানিতে ডুবে শিশুর করুণ মৃত্যু
  •   শনিবার চাঁদপুরে পাঁচজনের করোনা শনাক্ত
  •   মতলব উত্তরে নৌকাডুবি ॥ নিখোঁজ ১

প্রকাশ : ০৯ এপ্রিল ২০২২, ০০:০০

অধ্যবসায়ের গুণে সূচীপাড়া ডিগ্রি কলেজের আহসান আজ বিসিএস শিক্ষা ক্যাডার
বিশেষ প্রতিনিধি ॥

অধ্যবসায় আর কঠিন মনোবল থাকলে মানুষ তার কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পৌঁছে যায়, যার প্রমাণ দিলেন শাহরাস্তির সূচীপাড়া ডিগ্রি কলেজের প্রাক্তন ছাত্র মোঃ আহছান উল্যাহ। তিনি এ বছর ৪০তম বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, আহসান উল্যাহ সূচীপাড়া উত্তর ইউনিয়নের দৈকামতা জয়নাল হাজী বাড়ির মোঃ খোকন মিয়ার বড় ছেলে। তার মাতার নাম শাহনাজ বেগম। আহসান ২০০৬ সালে সূচীপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান শাখা হতে জিপিএ-এগ্রেড (৪.৪৪) ও ২০০৮ সালে সূচীপাড়া ডিগ্রি কলেজের বিজ্ঞান শাখা হতে জিপিএ -এ গ্রেডে (৪.৯০) উত্তীর্ণ হয়। পরবর্তীতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে দর্শন বিভাগে ভর্তি হয়ে স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর উভয় শ্রেণীতে প্রথম শ্রেণি লাভ করেন।

আহসান জানান, মূলত স্নাতক (সম্মান) শেষ পর্ব থেকে তিনি বিসিএস পরীক্ষার প্রস্তুতি নেয়া শুরু করেন। ৩৫তম বিসিএস প্রিলিমিনারী পরীক্ষায় পাস করেন, ৩৬তম বিসিএস পরীক্ষায় ছোট ভাইয়ের অসুস্থতার কারণে মাঝপথে গিয়ে শেষ করতে পারেননি, ৩৭তম বিসিএস পরীক্ষায় চূড়ান্ত সফলতা আসেনি, ৩৮তম ও ৩৯তম বিসিএস পরীক্ষায় ভাইভা পরীক্ষা দিয়েও সুপারিশকৃত হননি। ৪০তম বিবিএস-এ শিক্ষা ক্যাডারে ৭২ জনের মধ্যে ১১তম হিসেবে সুপারিশকৃত হন।

আহসান আরও জানান, বিসিএস পরীক্ষার পাশাপাশি ২০১৬ সাল থেকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক হিসেবে নূনীয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যোগদান করে বর্তমানে সূচীপাড়া যুক্ত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত আছেন।

আহসানের প্রিয় শিক্ষক সূচীপাড়া ডিগ্রি কলেজের রসায়ন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও ভারপ্রাপ্ত উপাধ্যক্ষ মোঃ আবুল কালাম জানান, আহসান ২০০৮ ব্যাচের একজন মেধাবী ও পড়ুয়া শিক্ষার্থী ছিল। সে বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে টিউশনি করে নিজে পড়েছে এবং নিজের পরিবারের ভরণ-পোষণ করেছে। সরকারি কলেজের শিক্ষক হওয়াটা আহসানের ন্যায্য পাওনা ছিলো। তাই মহান দয়াময় আল্লাহ তার সহায় হয়েছেন। মহান স্রষ্টা তাকে একজন আলোকিত শিক্ষক হিসেবে বেড়ে উঠার সুযোগ করে দিন-এ প্রত্যাশাই করছি।

আহসানের এ কৃতিত্বে তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছেন সূচীপাড়া ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ হুমায়ুন কবির ভূঁইয়া, সূচীপাড়া ডিগ্রি কলেজের সাবেক সহকারী অধ্যাপক ও বর্তমান কাকৈরতলা জনতা কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মনিরুল হক পাটোয়ারী এবং প্রবাসী সাংবাদিক, নাট্যকার রোটাঃ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়