চাঁদপুর, শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯, ২০ মহররম ১৪৪৪  |   ৩৪ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   উদাসীনতা আর কাকে বলে!
  •   ইবাদত ও খেলাফতের মধ্যেই মুসলমানদের শ্রেষ্ঠত্ব নিহিত
  •   আগামী প্রজন্মকে নির্মাণে এ ধরনের অনুষ্ঠানের কোনো বিকল্প নেই
  •   পীর বাদশা মিয়া রোডে ড্রেন ও সড়ক নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করলেন মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল
  •   এলজিইডি চাঁদপুরের সাড়ে ১০ হাজার তালগাছের বীজ রোপণ

প্রকাশ : ৩০ এপ্রিল ২০২২, ০০:০০

রমজান জাকাত আদায়ের মৌসুম

রমজান জাকাত আদায়ের মৌসুম
এএইচএম আহসান উল্লাহ ॥

মুসলমানদের জীবনে নামাজ রোজার মতোই একটি ফরজ ইবাদত হচ্ছে জাকাত। তবে জাকাত একজন মুসলমানের উপর শর্ত সাপেক্ষে ফরজ হয়। সেটি হচ্ছে তাকে মালিকে নিসাব হতে হবে।

মানুষের প্রতি আল্লাহ পাকের অফুরন্ত নেয়ামতের অন্যতম নেয়ামত হচ্ছে সম্পদের মালিক হওয়া। তবে এ নেয়ামত আল্লাহ পাক সকলকে সমভাবে দান করেন না। এটি তাঁর একটি গভীর নিয়ন্ত্রণ কৌশল। তিনি কাউকে ধনী, কাউকে গরিব বানিয়েছেন। যদি এর ব্যতিক্রম সকলেই ধনী কিংবা সকলেই গরিব হতো তাহলে এ পার্থিব জগতে সুশৃঙ্খল গতিময়তা বাধাগ্রস্ত হতো। এ পার্থিব জগৎ পরিচালনায় নিয়ন্ত্রণ ও ভারসাম্যতা রাখার জন্যই মহান আল্লাহ ধনী-গরিব সৃষ্টি করেছেন। আবার ধনীদের সম্পদের উপর গরিবের নির্দিষ্ট হক বা অধিকার দিয়ে দিয়েছেন। তা হচ্ছে জাকাত ও ফিতরা।

পবিত্র মাহে রমজান নানাবিধ কারণে জাকাত আদায়ের একটি উপযুক্ত মৌসুম। একদিকে সাওয়াবের দিক বিবেচনায় অপরদিকে গরিবের প্রয়োজন বিবেচনায় রমজানকে জাকাত আদায়ের জন্য মুসলিম উম্মাহ মোক্ষম সময় হিসেবে বেছে নিয়েছে। রমজানে একটি ফরজ আদায় করলে ৭০টি ফরজেরও বেশি সাওয়াব পাওয়া যায়। আর জাকাত হচ্ছে ফরজ। এ জন্য সাওয়াবের আধিক্যের কারণে মুসলমানগণ রমজানে জাকাত আদায় করে থাকেন। অপরদিকে রমজানে খাওয়া-দাওয়া ও ঈদের আনন্দে ধনীদের যেমন চাহিদা থাকে গরিবদেরও তো সামান্যতম চাহিদা থাকে। সে চাহিদা মেটানোর জন্যে প্রয়োজন অর্থের। এ জন্যে রমজানে সেহরী ও ইফতার খেয়ে যাতে গরিবরাও রোজা রাখতে পারে এবং ঈদুল ফিতরের দিন তাদের পরিবার পরিজনদের জন্যে সাধ্যমতো নতুন জামা কাপড় কিনতে পারে, সেমাই চিনি কিনতে পারে সে জন্য রমজানে জাকাতের অর্থ গরিবদের মাঝে দেয়া হয়। তবে এটিকে দান বলা যাবে না। এটা গরিবদের হক বা অধিকার। তা যথাযথভাবে আদায় করা ধনীদের উপর কর্তব্য। আর যার উপর জাকাত ফরজ হয়নি তিনিও যদি রমজান মাসে নফল হিসেবে দান করেন তাহলে ফরজ আদায়ের সওয়াব পাবেন। আর যিনি এ মাসে বিগত এক বছরের জাকাত আদায় করবেন তিনি রমজানের বরকতে ৭০ বছরের জাকাত আদায়ের প্রতিদান পাবেন। এ যেনো সম্পদশালীর জন্যে পবিত্র ঈদুল ফিতরে আল্লাহর পক্ষ থেকে বোনাস বা বিশেষ সম্মানী।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়