চাঁদপুর, সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ১৩ আষাঢ় ১৪২৯, ২৬ জিলকদ ১৪৪৩  |   ২৮ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   রোটারী জেলায় চাঁদপুর রোটারী ক্লাবের অভাবনীয় সাফল্য অর্জন
  •   বৃহৎ র‌্যালি আল-আমিন একাডেমি ও চেয়ারম্যান সেলিম খানের
  •   পদ্মা সেতুর থিম সং-এর গীতিকার কবির বকুলকে শিক্ষামন্ত্রীর অভিনন্দন
  •   হাইমচরে পানিতে ডুবে শিশুর করুণ মৃত্যু
  •   শনিবার চাঁদপুরে পাঁচজনের করোনা শনাক্ত

প্রকাশ : ২১ মে ২০২২, ০০:০০

মৃত্যুই বাধা হয়ে দাঁড়ালো ওদের শিক্ষক হবার স্বপ্ন পূরণে
কামরুজ্জামান টুটুল ॥

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ফাতেমা আলম ও আবদুল্লাহ পাটোয়ারীসহ তাদের শিক্ষক হওয়ার স্বপ্ন চিরতরে উবে গেলো। শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের চাঁদপুর সদর উপজেলার ঘোষেরহাটে পিকআপ (মিনি ট্রাক) আর সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হাজীগঞ্জ থেকে সিএনজি অটোরিকশা করে চাঁদপুর শহরে যাচ্ছিলেন প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্যে। এদিকে সকালে দুর্ঘটনার পর পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে হাজীগঞ্জের সর্বত্র নেমে আসে শোকের ছায়া। এ নিয়ে দিনভর নিহতদের পরিচয়সহ ঘটনা জানার জন্যে আগ্রহী হয়ে উঠে হাজার হাজার মানুষ। তাদের মৃত্যু নিয়ে তথ্য বিভ্রাটসহ নানা গুঞ্জন শুরু হয়।

নিহত ফাতেমা আলম হাজীগঞ্জের দ্বাদশগ্রাম ইউনিয়নের নাসিরকোট গ্রামের মিজি বাড়ির মাহবুব হোসেনের মেয়ে ও পাশের বাকিলা ইউনিয়নের ছয়ছিলা গ্রামের আলমের স্ত্রী। তিনি হাজীগঞ্জের বলাখাল এলাকায় স্বামীসহ ভাড়া বাসায় থাকতেন। অপর নিহত আবদুল্লাহ পাটোয়ারী একই উপজেলার কালচোঁ দক্ষিণ ইউনিয়নের ওড়পুর-নোয়াপাড়া গ্রামের পাটওয়ারী বাড়ির হোসেন পাটওয়ারীর ছেলে।

দ্বাদশগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম বকাউল ফাতেমা আলম ও কালচোঁ দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা স্বপন আবদুল্লাহ পাটোয়ারীর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, রাতেই নিহতদেরকে তাদের পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

ঘোষেরহাট এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় দুজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রশিদ চাঁদপুর কণ্ঠকে জানান, দুর্ঘটনার পর পর আমরা মিনি ট্রাক ও সিএনজি অটোরিকশাটিকে জব্দ করেছি। এ ঘটনায় কোনো মামলা না হওয়ায় বিকেলের দিকে উভয়ের পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।

এদিকে নিহতদের পরীক্ষার প্রবেশপত্র সূত্রে জানা যায়, নিহত ফাতেমা আলমের পরীক্ষা কেন্দ্র ছিলো চাঁদপুর আল-আমিন একাডেমী স্কুল এন্ড কলেজ এবং আব্দুল্লাহ পাটওয়ারীর পরীক্ষা কেন্দ্র ছিলো বাবুরহাট হাইস্কুল এন্ড কলেজ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শুক্রবার সকালে বলাখাল বাজার এলাকা থেকে পাঁচ যাত্রী নিয়ে চাঁদপুর থ-১১-৪১৬১ সিএনজি অটোরিকশাটি চাঁদপুরের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। পথিমধ্যে ঘোষেরহাট বাজার এলাকার শাহতলী রাস্তার মুখে বিপরীত থেকে আসা পিকআপের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে ফাতেমা বেগম ও হাসপাতালে নেয়ার পথে আবদুল্লাহ পাটোয়ারী মারা যান। বাকি তিন যাত্রীর সবাই কমণ্ডবেশি আহত হলেও অলৌকিকভাবে বেঁচে যান এবং সুস্থ থেকে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান সিএনজি অটোরিকশা চালক ও পিকআপ চালক উভয়ে। দুর্ঘটনার পর পর স্থানীয়রা হতাহতদের সাথে থাকা পরীক্ষার প্রবেশপত্র থেকে নিশ্চিত হয়, তারা প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্যে চাঁদপুরে যাচ্ছিলেন।

ঘোষেরহাটের এ দুর্ঘটনা নিয়ে হাজীগঞ্জে গভীর শোকের ছায়া নেমে আসে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ নিয়ে গুঞ্জন আর গুজবের ডালপালা ছড়ায়। অনেকে আবার তিনজন মৃত্যুর বিষয় নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিতে দেখা গেছে। তবে ২ জনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে প্রথমাবস্থায় নিহত ফাতেমার পরিচয় অধিকাংশজনই জানতে পারেনি।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়