চাঁদপুর, শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩  |   ২৯ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   চাঁদপুরের ২১তম জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান
  •   প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ৫ পরীক্ষার্থী হতাহত
  •   হাজীগঞ্জের শিশু আরাফ হত্যায় তিন আসামীর মৃত্যুদণ্ড
  •   কল্যাণপুর ইউপির জেলে চাল আত্মসাৎ, দুই গুদাম সিলগালা
  •   মা আর স্ত্রীকে বুঝিয়ে দেয়া হলো দুই ভাইয়ের লাশ

প্রকাশ : ০২ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০

মামলার বেড়াজালে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশির আর কতদিন জেলে থাকবেন?
মোহাম্মদ মহিউদ্দিন ॥

এক সময়ের তুখোড় ছাত্র নেতা, কচুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশির মামলার বেড়াজালে পড়ে আর কতদিন জেলে থাকবেন এ প্রশ্ন এখন দলীয় নেতা-কর্মীসহ কচুয়াবাসীর মুখে মুখে।

২০২০ সালের ২০ জুলাই কচুয়ার শহীদ স্মৃতি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নির্মাণ কাজের তদারককারী শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের চাঁদপুরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী নূরে আলম লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে শাহজাহান শিশিরের বিরুদ্ধে কচুয়া থানায় একটি মামলা দায়ের হয়। ওই মামলায় ২০২০ সালের ২৫ আগস্ট চাঁদপুর আদালতে জামিন চাইতে গেলে বিজ্ঞ আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন। পরে গ্রেফতারের ৩মাস ১২ দিন পর ২০২০ সালের ৭ ডিসেম্বর তিনি হাইকোর্ট থেকে জামিনপ্রাপ্ত হয়ে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি লাভ করেন। মুক্তিলাভের দিনই (৭ ডিসেম্বর ২০২০) ফেইসবুকে একটি স্ট্যাটাসে কমেন্ট করাকে কেন্দ্র করে মেহেদী হাসান মেরিন নামে এক ব্যক্তি ধানমন্ডি থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তাঁর বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ৫৩২/২০২০। এ মামলায় তিনি হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন নেন। গত ১ সেপ্টেম্বর উক্ত ধানমন্ডি থানার মামলায় ঢাকার দায়রা জজ আদালতে হাজিরা দিতে গেলে বিজ্ঞ আদালত তার জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। পরবর্তীতে ২৭ সেপ্টেম্বর তিনি এই মামলায় জামিন পান।

এদিকে ঢাকার সদর দক্ষিণ কোতয়ালী থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মাহবুব আলম নামের এক ব্যক্তি তাঁর বিরুদ্ধে আবারো মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ৩৭ (৯)/২১, যার সিআর নং ২৮৩/২১। ধানমন্ডি থানায় দায়েরকৃত মামলায় জামিন পেয়েও জামিন অর্ডার পেন্ডিং রাখা হয়। ২৯ সেপ্টেম্বর তাকে ঢাকার সিএমএম কোর্টে হাজির করার নির্দেশ দেয়া হয়। এ তারিখে কোতয়ালী থানায় দায়ের করা মামলায় তাকে শোন অ্যারেস্ট দেখিয়ে আবারো জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেয়া হয়। শাহজাহান শিশিরের পক্ষ থেকে ওই একই তারিখে জামিনের আবেদন জানানো হয়। বিজ্ঞ আদালত জামিন না মঞ্জুর করে পুলিশের আবেদনের প্রেক্ষিতে তাঁর ১ দিনের পুলিশ রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।

২৯ সেপ্টেম্বর শাহজাহান শিশিরের বিরুদ্ধে পুনরায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা, শোন এ্যারেস্ট ও রিমান্ড মঞ্জুর এসবের প্রতিবাদে কচুয়া উত্তাল হয়ে উঠে। কচুয়া পৌর এলাকাসহ বিভিন্ন অঞ্চলে ঝড় উঠে প্রতিবাদের। মিছিল নিয়ে রাস্তায় বেরিয়ে পরে শাহজাহান শিশিরের সমর্থকরা। শাহজাহান শিশিরের গ্রেফতারকে নিয়ে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ-সংগঠনের নেতা-কর্মীদের মাঝে চলছে তীব্র দ্বন্দ্ব সংঘাত। এ দ্বন্দ্ব সংঘাতের শিগগিরই নিরসন না হলে দিনের পর দিন কচুয়ার রাজনীতি খুবই অশান্ত হয়ে উঠার আশঙ্কা করা হচ্ছে। কবে নাগাদ শাহজাহান শিশির মুক্তি পাবেন, নাকি তার বিরুদ্ধে আরো মামলা দায়ের হবে, তাতে করে তাকে হাজতেই থাকতে হবে কী না এসব জল্পনা-কল্পনা চলছে কচুয়ার রাজনীতির মাঠে।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়