রোববার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ৮ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩  |   ৩১ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   হাইমচরে শীতকালীন সবজির বাম্পার ফলন, দামে অসন্তুষ্ট কৃষক : সবজি ক্ষেতে সবুজ হাসি থাকলেও কৃষকের মুখ ম্লান
  •   অশুভ শক্তি শক্তিশালী হলেও জয়ি হতে পারবে না : শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি

প্রকাশ : ১৪ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০

হাজীগঞ্জে পূজামণ্ডপে হামলা ও ভাংচুরে হতাহতের ঘটনা
হাজীগঞ্জ ব্যুরো ॥

কুমিল্লা শহরের একটি পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন অবমাননাকে কেন্দ্র করে হাজীগঞ্জে পূজা ম-পে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এতে করে ১৭ জন পুলিশসহ বহু আহত ও ক’জন নিহত হবার খবর পাওয়া গেছে।

বুধবার দিবাগত রাত ৮টার দিকে হাজীগঞ্জ পশ্চিম বাজারে এ ঘটনা ঘটে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩টি লাশ ও কিছু আহত ব্যক্তির চিকিৎসা গ্রহণের বিষয়টি জানা গেছে। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এ সকল হতাহত ব্যক্তি উক্ত হামলার শিকার কিনা সেটা স্বীকার করেনি। হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ হারুনুর রশিদ জানিয়েছেন, মৃত্যুর বিষয়টি আমাদের জানা নেই।

হাসপাতালে প্রাপ্ত লাশগুলোর পরিচয় হচ্ছে : হাজীগঞ্জ পৌরসভাধীন ১১নং ওয়ার্ড রান্ধুনীমূড়া গ্রামের ফজলুল হকের ছেলে হৃদয় হোসেন (১৪) ও একই গ্রামের তাজুল ইসলামের ছেলে আলামিন (১৮) এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার সুন্দরপুর গ্রামের শামছুল হকের ছেলে মোঃ বাবলু (৩৫)। আহতরা হলেন : হাজীগঞ্জ উপজেলার কালচোঁ দক্ষিণ ইউনিয়নের মৈশাইদ গ্রামের মোঃ মনির হোসেনের ছেলে মোঃ সবুজ (১৬), হাজীগঞ্জ পৌরসভাধীন ৫নং ওয়ার্ড মকিমাবাদ গ্রামের প্রিতম (২০), কচুয়া উপজেলার রহিমানগর এলাকার জুনাশর গ্রামের মোঃ সিদ্দিকের ছেলে মোঃ হারেস (২৩) এবং অজ্ঞাত ঠিকানার মিলন।

জানা গেছে, কুমিল্লা শহরে একটি পূজা মণ্ডপের মূর্তির কোলে পবিত্র কোরআন শরীফ রাখার ছবিকে কেন্দ্র করে এ দিন রাত আনুমানিক আটটার দিকে হাজীগঞ্জ-রামগঞ্জ সড়কের নদীর দক্ষিণ পাড় থেকে হাজীগঞ্জ বাজারে একটি মিছিল আসে। মিছিলটি হাজীগঞ্জ পশ্চিম বাজারস্থ শ্রীশ্রী রাজা লক্ষ্মী নারায়ণ জিউর আখড়ায় অবস্থিত পূজামণ্ডপের সামনে আসলে মিছিল থেকে কে বা কারা পূজামণ্ডপের গেইটের দিকে ইট-পাটকেল ছুড়ে মারে। এতে ঘটনাস্থলে থাকা পুলিশ মিছিলকারীদের প্রতিরোধের চেষ্টা করলে পুলিশের উপর ইট-পাটকেল ছুড়ে মারে মিছিলকারীরা। পরবর্তীতে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার সৃষ্টি হয় এবং পুলিশ আত্মরক্ষার্থে ফাঁকা গুলি ছোড়ে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়।

মিছিলকারীদের ইট-পাটকেলের আঘাতে ১৭জন পুলিশ আহত হয়েছেন বলে পুলিশ দাবি করেছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, আল আমিন ও বাবলু নামের দুজনকে হাসপাতালে মৃত অবস্থায় আনা হয়েছে এবং হৃদয় নামের এক কিশোর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। এছাড়াও আহত ৪ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

ঘটনার পর থেকে হাজীগঞ্জে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। পুলিশ আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে সতর্ক অবস্থায় রয়েছে।

হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ জানান, নিহতের বিষয়টি জানা নেই। তবে মিছিলকারীদের হামলায় ১৭ জন পুলিশ আহত হয়েছেন।

এ বিষয়ে রাত ১১টা ৫ মিনিটে চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ চাঁদপুর কণ্ঠকে জানান, কুমিল্লার ঘটনা নিয়ে চাঁদপুরের বিভিন্নস্থানে সহিংসতা চলছে। আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার সর্বাত্মক চেষ্টা করছি। হাজীগঞ্জের বিষয়ে তিনি বলেন, সেখানে পুলিশ ও মিছিলকারীদের মধ্যে সংঘর্ষে উভয়পক্ষের বেশ ক’জন আহত হয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়