চাঁদপুর, সোমবার, ৮ আগস্ট ২০২২, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯, ৯ মহররম ১৪৪৪  |   ২৯ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   চাঁদপুরে ৭ম শ্রেণির ছাত্রীকে গণধর্ষণ
  •   গলায় ফাঁস লাগিয়ে কিশোরের আত্মহত্যা
  •   জমি খারিজের নামে হাতিয়ে নিলেন বিপুল পরিমাণ টাকা
  •   কিশোর গ্যাং গড়ে উঠার আগেই নির্মূল করতে হবে : মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম
  •   ডিবি পুলিশের অভিযানে আন্তঃ জেলা প্রতারকচক্রের ৪ সদস্য গ্রেফতার

প্রকাশ : ১৫ জুন ২০২২, ০০:০০

মতলব দক্ষিণে জোরপূর্বক জায়গা দখলের চেষ্টার অভিযোগ
স্টাফ রিপোর্টার ॥

মতলব দক্ষিণে পৈত্রিকসূত্রে পাওয়া জায়গা প্রতিপক্ষরা জোরপূর্বক দখলের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় বর্তমানে দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোনো মুহূর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করছে এলাকাবাসী। এ সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে জরুনা বেগম বাদী হয়ে মতলব দক্ষিণ থানায় প্রতিপক্ষ রেনু মিয়া ও রোকেয়া বেগম রকি গংয়ের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

জানা যায়, মতলব দক্ষিণ উপজেলার ৩নং খাদেরগাঁও ইউনিয়নের তেলীমাছুয়াখাল গ্রামের মৃত মোঃ হামির আলী প্রধানের ছেলে আনছার আলী, মেয়ে রূপজান বিবি ও নাতী হাসমত আলী ওয়ারিশ সূত্রে মালিক হয়ে সিএস ১৭৫ দাগে বাড়ি মোট ৮৩ শতাংশের মধ্যে বিএস ৫০৬ নং খতিয়ানে ৩৩৮ দাগে মোট ১০ শতাংশ ভূমির মধ্যে ৬ শতাংশ সম্পত্তি একই এলাকার মৃত মোঃ মহর আলীর ছেলে মোঃ জামাল মিয়া, চারু মিয়া এবং মৃত চান মিয়ার স্ত্রী খতেজা বেগমের নামে সাফকবালা দলিলমূলে ১৯৮৯ সালের ৯ নভেম্বর বিক্রি করে দেন। উক্ত সম্পত্তি পুনরায় ১৯৯১ সালের ১১ মার্চ রূপজান বিবির কাছ থেকে ভুয়া দলিল করে ক্রয় করেন একই বাড়ির মোহাম্মদ আলীর ছেলে ফজলুর রহমান ও ছাদেক আলী এবং আবদুল আলী জমাদারের ছেলে দুলাল ও শাহআলম গং। একই দাতা রূপজান বিবি ১৯৯২ সালের ৮ জুন একই দাগে একই এলাকার মৃত কাশেম আলী বেপারীর ছেলে মোঃ রেনু মিয়া, মোঃ অরুন মিয়া ও মৃত দুধ মিয়ার স্ত্রী রোকেয়া খাতুন ও তার ছেলে জামাল হোসেনের নামে ভুয়া দলিল করে বিক্রি করেন। এরপর থেকেই রোকেয়া বেগম গং ওই তৃতীয় নম্বর দলিলমূলে মালিকানা দাবি করে জোরপূর্বক জায়গা দখলের চেষ্টা করে আসছেন।

থানার অভিযোগ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে জরুনা বেগমের সাথে প্রতিপক্ষ রেনু মিয়া ও রোকেয়া বেগম গংয়ের জায়গা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। উক্ত বিরোধীয় জায়গা নিয়ে উভয় পক্ষে বেশ ক’বার স্থানীয়ভাবে সালিসি বৈঠকের ঘটনা ঘটে। কিন্তু প্রতিপক্ষ রেনু মিয়া ও রোকেয়া বেগম রকি গং কোনো প্রকার সালিস বৈঠক না মেনে জোরপূর্বক জায়গা দখলের পাঁয়তারা করছে। এরই সূত্র ধরে গত ১০ জুন রোকেয়া বেগম রকি বাদী জরুনা বেগমের মালিকানা জায়গা থেকে মূল্যবান কাঠের গাছ (রেইনট্রি, কড়ই) জোরপূর্বক কেটে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ করেন বাদী জরুনা বেগমের ছেলে মোঃ সিরাজ জমাদার। উক্ত গাছ কাটতে বাধা দিতে গেলে রোকেয়া বেগম গং দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বাদী জরুনা বেগমকে মারধর করতে আসলে স্থানীয়দের সহায়তায় রক্ষা পান। এ সময় রোকেয়া বেগম গং প্রাণনাশের হুমকি-ধমকি দেয় বলে জানান তারা।

এদিকে এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, রোকেয়া বেগম রকি এলাকার একজন চিহ্নিত সুদ ব্যবসায়ী। গত ক’দিন আগে সুদের টাকার জন্য এক জেলের বসতঘরে তালা দেয়ার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

উক্ত বিরোধীয় জায়গা দখল-বেদখল করা নিয়ে বাদিনী জরুনা বেগম ও তার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে জানান সিরাজ জমাদার। তিনি এ বিষয় নিয়ে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এ বিষয়ে রোকেয়া বেগম রকি জানান, আমি কোনো গাছ কাটি নাই। আমি আমার গাছের ডালা কেটেছি। আমি কারো জায়গা দখল করি নাই। জায়গা ও গাছ আমার নিজের।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়