সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ৯ কার্তিক ১৪২৮, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩  |   ২৮ °সে
আজকের পত্রিকা জাতীয়আন্তর্জাতিকরাজনীতিখেলাধুলাবিনোদনঅর্থনীতি শিক্ষা স্বাস্থ্য সারাদেশ ফিচার সম্পাদকীয়
ব্রেকিং নিউজ
  •   হাইমচরে শীতকালীন সবজির বাম্পার ফলন, দামে অসন্তুষ্ট কৃষক : সবজি ক্ষেতে সবুজ হাসি থাকলেও কৃষকের মুখ ম্লান
  •   অশুভ শক্তি শক্তিশালী হলেও জয়ি হতে পারবে না : শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি

প্রকাশ : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০০

পুরানো বন্ধুদের দূরে রাখুন
অনলাইন ডেস্ক

পৃথিবীর সকল সম্পর্কই শেষ পর্যন্ত আনুষ্ঠানিক শুধুমাত্র বন্ধু-বান্ধব ছাড়া। বন্ধুত্ব একটি অনানুষ্ঠানিক সম্পর্ক। মানুষ শৈশব, কৈশোর, যৌবনে, স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে, চাকরিতে কর্মক্ষেত্রে গিয়ে বন্ধু তৈরি করে। জীবনের প্রয়োজনে একসময়ের বন্ধুদের রেখে নতুন জায়গায় নতুন পরিবেশে বন্ধু-বান্ধব তৈরি করে। মানুষ বন্ধু ছাড়া চলতে পারে না। সারাজীবন ধরে অনেকের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি হয় শেষ পর্যন্ত ৯ সংখ্যা অতিক্রম করা যায় না।

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে একটা সময় অতিক্রান্ত হবার পর নতুন নতুন পরিস্থিতি তৈরি হয়। শৈশবের বন্ধুদের সাথে দেখা হলে আমরা আবেগাপ্লুত হয়ে পড়ি। কত কথা কত স্মৃতি চোখের সামনে এক মুহূর্তে এসে হাজির হয়। মানুষ স্কুল জীবনের এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বন্ধুদের বেশি মনে করে। কারণ এই দুই জায়গায় পাঁচ/সাত বছর করে কাটিয়ে আসে।

মানুষ জীবনের কঠিন মুহূর্তগুলো অতিক্রম করে বন্ধু-বান্ধবদের সহযোগিতায়। যারা সহযোগিতা করে তারা মনের মধ্যে প্রত্যাশা জিইয়ে রাখতে গেলে সম্পর্ক দুর্বল হতে বেশি সময় লাগে না।

আপনার বন্ধুরা আপনাকে মূল্যায়ন করবে যে সময়টাতে আপনি তাঁদের সাথে ছিলেন সেই প্রেক্ষাপটে।

ক্ষমতাবান সামর্থ্যবান বন্ধুদের সাথে দেখা করতে যাওয়া এক ধরনের বিড়ম্বনা ছাড়া আর কিছু নয়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে ক্ষমতাবানরা নিজেদের বন্ধু-বান্ধবদের দয়া-কৃপা-অনুগ্রহের চোখে দেখে থাকে। দুর্দশাগ্রস্ত বিপদে পড়া মানুষই বেশি করে পুরানো দিনের বন্ধু-বান্ধবদের ক্ষমতা এবং সামর্থ্যরে প্রশংসায় ব্যাকুল হয়ে পড়ে।

বন্ধুত্ব একটা চলমান প্রক্রিয়া। মাঝখানে লম্বা বিরতিতে বন্ধুত্বের মান কমে যায়। হঠাৎ দেখা হলে দুজনের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্য তৈরি হয়, তা আবার সময়ের ব্যবধানে মিলিয়ে যায়।

বিশেষ সময়ে বিশেষ পরিস্থিতিতে যার সাথে আপনার বন্ধুত্ব হয়েছিলো তা সময়ের বিবর্তনে ভিন্ন রকম হয়ে যাবে। পুরানো বন্ধুর সাথে বন্ধুত্ব গাঢ় হবে যদি দুজনের চলার পথ, কর্মক্ষেত্র, চিন্তার জগতে মিল থাকে।

পুরানো বন্ধুকে টাকা ধার দিয়ে সেই টাকা ফেরত না পেয়ে আক্ষেপ করে লাভ নেই। যিনি বন্ধুকে বিশ্বাস করে টাকা ধার দিয়েছেন তিনি নিঃসন্দেহে মহৎ।

পুরানো দিনের বন্ধুদের যথাযথ সম্মান মর্যাদা দিতে হবে। তাদের খোঁজ-খবর রাখলে মন ভালো থাকবে।

পুরানো বন্ধুদের স্মৃতি মনের জাদুঘরে যত্নের সাথে সাজিয়ে রাখতে হবে। মাঝে মধ্যে স্মৃতির জাদুঘরে স্বামী-স্ত্রী/ সন্তানদের নিয়ে বেড়িয়ে আসতে হবে। জাদুঘর মানুষের ইতিহাস ও ঐতিহ্যের স্থান সেখানে মানুষ দেখতে যায়, থাকতে যায় না।

‘পুরানো বন্ধুদের পারতপক্ষে দূরে রাখুন।’ বলেছেন মহাকবি গ্যেটে।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়